সত্য এসেছে এবং মিথ্যা বিলুপ্ত হয়েছে। নিশ্চয় মিথ্যা বিলুপ্ত হওয়ারই ছিল।

প্রসঙ্গঃ মক্কা ও মদীনার ২০ রাকআত তারাবীহ

যারা বলে মক্কা ও মদীনায় ২০ রাকআত তারাবীহ পড়া হয়। যারা মনে করেন তারাবীহর সালাত সংখ্যা শুধুই ২০ রাকআত, তারা মক্কা ও মদীনায় পঠিত ২০ রাকআত তারাবীহ সালাতের উদাহরণ টানেন। এই উদাহরণ টেনে তারা নিজেদের পক্ষের মতমতকে মজবুত করতে চান।

আসলে প্রকৃত


ইমাম বুখারী রহিমাহুল্লাহ এবং তারাবীহর পর তাহাজ্জুদ!

Imam Bukhari Taraweeh o Tahajjud

একজন রাবী হ’তে রেওয়ায়াত আছে যে, “ইমাম বুখারী রহিমাহুল্লাহ স্বীয় ছাত্রদেরকে [তারাবীহর] ছলাত পড়াতেন।  প্রত্যেক রাকআতে বিশ আয়াত পড়তেন। এবং এভাবেই কুরআন খতম হয়ে যেত । আর সাহরীর সময় অর্ধ হ’তে তিনভাগের এক ভাগ পর্যন্ত কুরআন পড়তেন (তারীখে


ঈসা বিন জারিয়া আল আনসারী (রহঃ) এর জারহ ও তাদীল নিয়ে একটি পর্যালোচনা

তাবেঈনে কেরামদের মধ্য হ’তে “ঈসা বিন জারিয়া আল-আনছারী আল-মাদানী রহিমাহুল্লাহ”-এর সংক্ষিপ্ত এবং সারগর্ভ জীবনী নিম্নরূপ-

ওস্তাদসমূহ : সাইয়েদুনা জাবের  বিন আব্দুল্লাহ আল-আনছারী রাযিআল্লাহু আনহু, সাইয়েদুনা জারীর বিন আব্দুল্লাহ আল-বাজালী


১১ রাকআত কিয়ামে রমাযান সম্পর্কিত হাদীসের ব্যাপারে ভ্রান্তি নিরসন

Hadith e Ayesha

বিরুদ্ধবাদীদের পক্ষ হতে মুহাদ্দিছগণ এবং তাদের  আনুগত্যকারীদের উপর  এই অভিযোগটি  অবিরত ধারায় করা হয়ে থাকে যেঃ

(১) আপনারা দু’ দু’রাকআত কেন পড়েন যেখানে আয়েশা (রা:) এর হাদীছে চার রাকআত রয়েছে?

(২) আপনারা সমস্ত রমযান জামাআত সহকারে


তারাবীহ নিয়ে মাওলানা তাহমীদুল মাওলা এবং লুৎফর রহমান ফরাযী কর্তৃক তথ্য গোপন

Tahmidul Mawla o Lutfor Forazi

মাওলানা তাহমীদুল মাওলা এবং লুৎফর রহমান ফরাযী (আল্লাহ তাদের হেদায়েত দিন), এই মত পোষণ করেন যে, তারাবীহ সালাত ‘২০ রাকআত সুন্নাতে মুয়াক্কাদাহ’ আট রাকআত তারাবীহ সহীহ নয়। এই মতকে প্রমাণ করার জন্য তারা পিস পাবলিকেশন-ঢাকা


বিশ রাকআত তারাবীহ এর পক্ষে একটি ইশতিহারের সংক্ষিপ্ত জবাব

Bish Rakat Taraweeh er Jobab


আমার একজন বন্ধু (হাফেয ফেরদাউস হাযরাভী) আমাকে একটি ইশতিহার দিয়েছেন। যেখানে এই দাবি করা হয়েছে যে, “মাসনূন তারাবীহ বীস হ্যায়” এবং এই দাবি করা হয়েছে যে, এর প্রমাণপুষ্ট জবাব যেন লেখা হয়। সে জন্য এই সংক্ষিপ্ত জবাবটি


একটি বিশুদ্ধ হাদীসকে শায বানানোর অপপ্রয়াস

Ekti Bishuddho Hadith
এই প্রবন্ধটি দেওয়ার উদ্দেশ্য ২০ রাক‘আত তারাবীহর সালাতের বিরোধিতা করা নয়। বরং যারা বলেন ২০ রাকআতই পড়তে হবে তাদের জন্য, যারা  তারাবীহ সালাত ২০ রাকআত সাব্যস্থ করতে গিয়ে বিশুদ্ধ সনদে বর্ণিত মুয়াত্তা ইমাম মালিকের হাদীসকে শায বলেন। হাদীসটি হলঃ


রহমাত, মাগফিরাত ও নাজাতের হাদীছের পর্যালোচনা

বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম

এই হাদীছটি সমাজে অনেক প্রচলিত। এই হাদীছটি অনেক বড় হওয়ায় এর আলোচ্য বিষয়গুলো পয়েন্ট আকারে লিখে দিলাম যাতে সবাই পয়েন্ট গুলো পড়েই বুঝতে পারে এবং কেউ এই হাদীছ বললে সহজেই বুঝতে পারে যে হাদীছটি দুর্বল। (ইবনে খুযাইমাহ, হা/১৮৮৭;


মুহাম্মাদ (সা) তারাবীহ (বিতরসহ) এগারো রাকআত পড়তেন

11 Rakat Taraweeh


মাসআলাঃ আমাদের ইমামে আযম মুহাম্মাদ রাসূলুল্লাহ ছাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এশার ছলাতের পর ফজর পর্যন্ত এগারো রাকআত পড়তেন।

দলীল-০১
উম্মুল মু’মিনীন আয়িশাহ রাযিআল্লাহু আনহা হ’তে বর্ণিত আছেঃ

كَانَ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ


তারাবীহ ও তাহাজ্জুদ একই সালাত

Taraweeh o Tahajjud


রাসূল (সাঃ) রামাযান ও রমাযানের বাইরে বিতর সহ ১১ রাকআতের বেশি পড়তেন না, যার মধ্যে ৩ রাকআত ছিল বিতরের সালাত। কিন্তু আমাদের হানাফী ভাইগনের দাবী এটা রাসূল (সাঃ) এর তারাবীহর সালাত নয়, এটা তাহাজ্জুদের সালাত, রাসূল (সাঃ) এর তারাবীহ ছিল ২০


Page 4 of 14« First...23456...10...Last »
Powered by WordPress | Designed by Shottanneshi Research Team